1. bappy.ador@yahoo.com : admin :
  2. hostctg@gmail.com : Sports Editor : Sports Editor
  3. Onlynayeemkhanbd@gmail.com : Admin admin : Admin admin
  4. afnafrahel@gmail.com : afnafrahel@gmail.com Sports : afnafrahel@gmail.com Sports
মঙ্গলবার, ১৮ মে ২০২১, ০২:০৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
এক জ্ঞানী ব্যক্তির পরামর্শে সিদ্ধান্ত বদলেছিলেন আফ্রিদি বাংলাদেশ একাদশে দ্যা ক্রাইসেস ম্যান, জায়গা হয়নি শান্ত-মিঠুনের ধ্বংসের মুখে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট, নিষিদ্ধ হতে চলেছেন ক্রিকেটাররা তামিমের সমালোচকদের উপযুক্ত জবাব দিলেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ আইপিএল খেলার ‘শাস্তি’, জাতীয় দল থেকে বাদ পড়ছেন বেয়ারস্টো-বাটলাররা থেমে নেই ফিজ, হোটেল রুমেই ব্যায়াম করছেন মুস্তাফিজ খুদে ওজিল লাল কার্ড দেখাচ্ছে ইসরাইলি সেনাকে, শেয়ার করলেন মাসুদ ওজিল । যার কথায় মুম্বই ইন্ডিয়ান্সে যোগ দিয়েছিলেন পোলার্ড তামিমের স্ট্রাইক রেট নিয়ে যারা কথা বলে তারা ‘বোকা’: মাহমুদউল্লাহ আইপিএল স্থগিত হওয়ায় পিপিএলে নাম লেখালেন বিরাট

কোহলি যে ভাবে নিজেদের পক্ষে সিদ্ধান্ত দিতে বাধ্য করেন!

  • সময় বৃহস্পতিবার, ২৫ মার্চ, ২০২১
  • ৭৩ পঠিত

মাঠে সব সময় ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে আ'ক্রমণাত্নকভাবেই দেখা যায়। সি'দ্ধান্ত নিজের পছন্দ না হলে মাঠেই আম্পায়ারের প্রতি অসন্তোষ জানান।

কিন্তু এর জন্য কখনো শাস্তি দেওয়া হয়না তাকে। এজন্য কোহলি আম্পায়ারকে চাপে রাখার চেষ্টা করছেন। এমনই অ'ভিযোগ এবার ভেসে এল ইংরেজ শিবিরের পক্ষ থেকে।
ইংল্যান্ডের ভারত সফরের শুরু থেকেই পিচ ইস্যু এবং আম্পায়ারিং নিয়ে খোলামেলা মতামত রাখছেন কোহলি। তবে এই ঘটনা মোটেই ভালোভাবে নেননি ইংল্যান্ডের কিংবদন্তি ডেভিড লয়েড। তিনি সরাসরি অ'ভিযোগ করলেন, আম্পায়ারদের শুধু অশ্র'দ্ধা করাই নয়, রীতিমত চাপে রাখছেন কোহলি।

ডেইলি মেইল-এ নিজের কলামে লয়েড লিখেছেন, “ডেভিড মালানের লো ক্যাচ নেওয়ার সময় সফট সিগন্যালকে আউট দেওয়ার জন্য ইংল্যান্ড নাকি আম্পায়ারকে চাপে রাখছিল। কোহলির বক্তব্য এমনই। প্রথম কথা হল, সফট সিগন্যাল প্রয়োগের উদ্দেশ্যই ছিল অনফিল্ড আম্পায়ারদের ওপর আরো কর্তৃত্বের সুবিধা দেওয়া।

আহমেদাবাদে নীতিন মেননের ওপর ইংল্যান্ড চাপ দিয়েছে কিনা জানি না, তবে একটা বি'ষয় আমা'র কাছে পরিষ্কার, কোহলি গোটা সফর জুড়েই আম্পায়ারদের অশ্র'দ্ধা, চাপে রাখার কাজ করে যাচ্ছে।

এখানেই না থেমে লয়েড আরো লিখেছেন, “ভারতে একাধিকবার ঝগড়াঝাটি হওয়ার উপক্রম হয়েছে। যা রীতিমত শাস্তিযোগ্য। ম'ঙ্গলবারেই আরো একবার এমনটা হলে, ভারতীয় ইনিংসের শেষের দিকে। মাঠে কোনোভাবেই প্রতিপক্ষ ক্রিকেটারের স'ঙ্গে ঝামেলা করা যায় না। আর নখদাঁতহীন আইসিসি এসব কিছুই করবে না।”

কোহলিকে একহাত নিয়ে তিনি এরপরে বলে দিয়েছেন, “আম্পায়ারদের পূর্ণ কর্তৃত্ব নিয়ে ম্যাচ পরিচালনা করতে হবে। দরকার হলে, লাল কার্ড, হলুদ কার্ডের প্রচলন করা যেতে পারে।

যাতে ওদের হাতে পুরো ক্ষমতা থাকে। ওদের ক্ষমতাহীন মনে হচ্ছে আজকাল। আর কোহলির উচিত আরো সতর্ক থাকা, কারণ ওর কথাবার্তা, আচার-আচরণ সবসময় বাকিদের ওপর প্রভাব ফেলে।

এর স'ঙ্গে লয়েড আরো যোগ করেন, “স্লো ওভার রেটের ক্ষেত্রেও একই ঘটনা। ২০০৩ সালে যখন টি২০ ক্রিকেট চালু করা হয়েছিল, সেটা ছিল কম সময়ের, দারুণ মজার বি'ষয়। এখন ম্যাচ শেষ করতে ৪ ঘন্টার বেশি সময় লেগে যাচ্ছে। এর ফলাফলে সম্প্রচারকারী চ্যানেল বেঁকে বসতে পারে পরের বার।

কারণ ওঁরা তো জানেই না ম্যাচ কখন শেষ হবে, সম্প্রচারের সূচি অদল বদল করতে হবে কিনা। আইসিসি দুই দলকেই জরিমানা করেছে স্লো ওভার রেটের জন্য। তবে ক্রিকেটারদের এতে কিছুই আসে যায় না। ওদের কত টাকা জরিমানা করা হচ্ছে, কে জরিমানার টাকা মেটাচ্ছে, তা আ মর'া কিছুই জানি না।

খবরটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
কপিরাইট © ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | স্পোর্টস গসিপ.কম
Theme Customized By Sports Gossip
error: Content is protected !!