1. bappy.ador@yahoo.com : admin :
  2. hostctg@gmail.com : Sports Editor : Sports Editor
  3. Onlynayeemkhanbd@gmail.com : Admin admin : Admin admin
বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০:৩২ পূর্বাহ্ন

ফিরে দেখা বিশ্বকাপ: প্রথম রাউন্ড থেকেই বাদ পড়েছে যে চার চ্যাম্পিয়ন!

  • সময় রবিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৮৮ পঠিত

এ যেন অলিখিত অ'ভিশাপ। ব্যতিক্রম ব্রাজিল বাদ দিলে গত দুই দশকে ফিফা বিশ্বকাপের প্রতিটি চ্যাম্পিয়ন দলই বাদ পড়েছে পরবর্তী আসরের প্রথম রাউন্ডে। ১৯৯৮ সালের চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স বাদ পড়ে ২০০২ সালে গ্রুপ পর্বে। যে ধা'রায় এরপর একে একে নাম লেখায় ইতালি, স্পেন আর জার্মানিও।

অবিশ্বা'স্য নাকি অ'ভিশাপ! এ যেন অলিখিত নিয়ম। যে জুজুর ভয় কা'টাতে পারছে না কেউই। তবে কি বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হলে, পরের আসরেই পতন আর ল'জ্জা অবধারিত। অন্তত গত দুই দশকের ইতিহাস তো তাই বলছে।

সালটা ২০০২। তখন বিশ্ব ফুটবলে চলছিল ফরাসি বিপ্লব। সোনার ছেলে জিদানের ভর করে ৯৮ বিশ্বকাপ আর ২০০০ সালের ইউরো জেতা দলটা, কোরিয়া জাপানেও ছিল হট কেক। প্যাট্টিক ভিয়েরা-থিয়রো অরি, ফ্রাঙ্ক লেবোউফরা ফর্মের তু'ঙ্গে। স্বপ্নেও কেউ ভাবেনি সেই ফ্রান্স আসর শুরুর করবে সেনেগালের মতো পুঁচকে দলের বিপক্ষে ১-০তে হেরে। শুধু তাই নয়, পরে ম্যাচে উরুগু'য়ের বিপক্ষে ড্র করলেও শেষ ম্যাচে ডেনমা'র্কের কাছে ২-০ গোলের হার প্রথম রাউন্ড থেকেই বিদায়ঘণ্টা বাজিয়ে দেয় ফরাসিদের।

২০০৬ সালে বিশ্বকে নিজেদের অবস্থান নবদর্পে জানান দিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ইতালি। কিন্তু সেই আজ্জুরিরা পরের আসর অর্থাৎ ২০১০ সালে বরণ করে নেয় ফ্রান্সের ভাগ্য। বাদ পড়ে গ্রুপ পর্ব থেকেই। অথচ গ্রুপ এফে তাদের তিন প্রতিপক্ষ ছিল প্যারাগু'য়ে, স্লোভাকিয়া আর নিউজিল্যান্ড।

সবাই ভেবেই নিয়েছিল আগের ওই দুই টুর্নামেন্টে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের বাদ পড়া হয়তো ফ্লুকই ছিল। কিন্তু সবাই নড়েচড়ে বসে ২০১০ সালের চ্যাম্পিয়ন স্পেন ১৪’র ব্রাজিল বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বের গণ্ডি পার 'হতে না পারলে। শুধু তাই নয় তিন ম্যাচে তারা হজম করে ৭ গোল। অথচ জাভি-ইনিয়েস্তা-ক্যাসিয়াস-পিকে-জাভি আলোনসোকে ছিলোনা সবাই ছিল দারুণ ফর্মে। তবুও অ'ভিশাপ থেকে মিলল না মুক্তি।

সে অ'ভিশাপ আরও স্পষ্ট হয় ১৪-এর চ্যাম্পিয়ন জার্মানি ১৮তে রাশিয়ায় প্রথম পর্বেই বাদ পড়লে। তখন সবাই ধরেই নেয়, এ আসরের চ্যাম্পিয়ন মানেই যেন পরবর্তী আসরের গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায়।

তবে মাঝে ব্যতিক্রম বলতে ২০০২ সালের চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল। যদিও ২০০৬ সালে সেলেসাওরা সর্বোচ্চ যেতে পারে কোয়ার্টার পর্যন্ত। তাইতো কাতারে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সের কি বরণ করে নিতে হবে একই ভাগ্য! নাকি তারাই ভাঙবেন বৃত্ত। উত্তরের জন্য আর মাত্র কয়েকটা দিনের অ'পেক্ষা।

খবরটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
কপিরাইট © ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | স্পোর্টস গসিপ.কম
Theme Customized By Sports Gossip
error: Content is protected !!