1. bappy.ador@yahoo.com : admin :
  2. hostctg@gmail.com : Sports Editor : Sports Editor
  3. Onlynayeemkhanbd@gmail.com : Admin admin : Admin admin
শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০৯:২১ অপরাহ্ন

সৌদিতে সর্বহারা শ্রমিকদের আহাজারি

  • সময় শনিবার, ২৩ জুলাই, ২০২২
  • ৮০ পঠিত

না যেনে ফ্রি ভিসা নামক অবৈ'ধ ভিসায় সৌদি যেয়ে মানবেতর জীবন পার করছেন শতাধিক বাংলাদেশি প্রবাসী। সর্বহারা এই প্রবাসী শ্রমিকদের আহাজারি ও আর্তনাদে ভারি হয়ে উঠছে আকাশ-বাতাস।

একটু সুখের আশায় তারা সহায়-সম্বল বিক্রি করে ৪-৫ লাখ টাকা খরচ করে বৈধ কন্ট্রাক্ট ভিসা, বিএমইটি ছাড়পত্র, কাজের চুক্তিপত্র নিয়ে সৌদি আরবে পাড়ি জমান। বর্তমানে তারা জেদ্দার আজিজিয়া এলাকায় একটি ভবনে মানবেতর জীবনযাপন করছেন।

জানাগেছে, জনশক্তি রফতানির সব নিয়মনীতি মেনে দালালরা কৌশলে হাজার হাজার ফ্রি ভিসাকে কন্ট্রাক্ট ভিসা বলে চালিয়ে দিলেও প্রবাসীদের কল্যাণে নিয়োজিত সংস্থাগু'লোর নজরে আসছে না। প্রতিনিয়ত হাজার হাজার শ্রমিক প্রতারণার স্বীকার হয়ে সর্বস্ব হারিয়ে দেশে ফিরলেও টনক নড়ছে না রাষ্ট্রযন্ত্রের কর্তাব্যক্তিদের।

বাংলাদেশি দালালের খপ্পরে পড়ে কেউ দুই মাস, কেউ তিন মাস, আবার কেউ ছয় মাস খেয়ে না খেয়ে দিনাতিপাত করছেন। কোম্পানি তাদের কোনো কাজ দিচ্ছে না। বরং কোম্পানির সবাই এখন আ'ত্মগো'পনে।

কেউই তাদের সন্ধান পাচ্ছে না। ভুক্তভোগীরা বলছেন, তারা প্রত্যেকেই ৪-৫ লাখ টাকা খরচ করে বাংলাদেশের বিভিন্ন ট্রাভেল এজেন্সির মাধ্যমে সৌদি আরব গেছেন।

বাংলাদেশি শ্রমিকদের একটি ব'দ্ধ বাড়িতে রেখেছেন। শুধু তাই নয়, তারা কাজ চাইলে কয়েকজন মিশরীয় নাগরিক দিয়ে তাদের বেদম মা'রধর করার অ'ভিযোগ করছে আট'ক শ্রমিকরা।

ভুক্তভোগী বাংলাদেশি শ্রমিকরা জানান, এ বি'ষয়ে জেদ্দাস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেটের কনসাল জেনারেল এবং শ্রম কাউন্সিলর এম কাজী এম'দাদুল ইসলামকে বিস্তারিত অবহিত করলে তারা তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে একজন আইন সহকারী পাঠান এবং আট'ক শ্রমিকদের সহযোগিতা দেয়ার আশ্বা'স দেন।

এদিকে প্রতারণা বন্ধে নেয়া হচ্ছে না প্রয়োজনীয় পদ'ক্ষেপ। তাই এ সুযোগে প্রবাসী শ্রমিকের র'ক্তচোষা দালাল চক্র দেশে এবং প্রবাসে গড়ে তুলেছে বিশাল সিন্ডিকেট।

এ সিন্ডিকেট তিন ভাগে কাজ করছে বলে জানান কয়েকজন ভুক্তভোগী। একটি অংশ বাংলাদেশে ভিসা বিক্রির কাজে নিয়োজিত; আরেকটি সৌদি আরব থেকে ভিসা সংগ্রহ করা এবং অন্যটি সৌদিতে কাজের সন্ধানে থাকে।

যেসব বেসরকারি নিয়োগ সংস্থা বিদেশে কর্মী পাঠায়, তারা কর্মী খোঁজার ক্ষেত্রে মূলত স্থানীয় দালালদের ওপর নির্ভরশীল। এসব দালাল বিদেশ যেতে প্রকৃত যে খরচ হয়, তার চেয়ে অনেক বেশি অর্থ আ'দায় করে বিদেশ গমনেচ্ছুদের কাছ থেকে। এ বি'ষয়ে বাংলাদেশ সরকারের সহযোগিতা চেয়েছেন ভুক্তভোগী শ্রমিকরা।

খবরটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
কপিরাইট © ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | স্পোর্টস গসিপ.কম
Theme Customized By Sports Gossip
error: Content is protected !!