1. bappy.ador@yahoo.com : admin :
  2. hostctg@gmail.com : Sports Editor : Sports Editor
  3. Onlynayeemkhanbd@gmail.com : Admin admin : Admin admin
বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১১:৫৫ পূর্বাহ্ন

ফিক্সিং, যৌ’ন অপরাধে জড়িয়ে পাকিস্তানি আম্পায়ার এখন জুতা বিক্রেতা!

  • সময় শুক্রবার, ২৪ জুন, ২০২২
  • ৫৩ পঠিত

আন্তর্জাতিক ক্রিকে'টে তিনি আম্পায়ার হিসেবে সুপরিচিত। একসময় চুটিয়ে আম্পায়ারিং করেছেন। তিন ধরনের ক্রিকেট মিলিয়ে ১৭০টি ম্যাচ তিনি পরিচালনা করেছেন। এমন সুন্দর ক্যারিয়ার হুট করেই থেমে যায় নিজের দোষে। এক মডেলকে যৌ'ন হয়রানি এবং জুয়াড়িদের থেকে টাকা নেওয়ার অ'ভিযোগে কালিমালিপ্ত হয় তার জীবন। পাকিস্তানের সেই আম্পায়ার আসাদ রউফ এখন লাহোরের বাজারে পুরনো জুতা বিক্রি করছেন!

আসাদ রউফের এই পরিণতির গল্প প্রকাশ করেছে পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম। ক্রিকে'টের স'ঙ্গে তার এখন কোনো সম্পর্ক নেই। খবরও রাখেন না। এখন তার মাথায় শুধু ব্যবসা। আসাদ রউফ বলেছেন, ‘জীবনে অনেক ম্যাচে আম্পায়ারিং করেছি। আর নতুন করে কিছু দেখার নেই। ২০১৩ সালের পর থেকে খেলার স'ঙ্গে আর কোনো যোগাযোগ নেই। পুরোপুরি ক্রিকেট থেকে দূরে আছি।’

২০১২ সালে রউফের বিরু'দ্ধে যৌ'ন হয়রানির অ'ভিযোগ এনেছিলেন এক মডেল। তিনি দাবি করেছিলেন, বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে দিনের পর দিন তার স'ঙ্গে সহ'বাস করেছিলেন রউফ। পরে আর বিয়ে করতে রাজি হননি। রউফ সেই ঘটনা তখন অস্বীকার করেছিলেন। এখনো তিনি অস্বীকারই করছেন, ‘মেয়েটি অ'ভিযোগ করার পরের মৌসুমেও আইপিএলে আম্পায়ারিং করেছি। তবে এই ঘটনায় আমা'র ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়েছিল।’

রউফের জীবনে সবচেয়ে বড় ধাক্কা এসেছিল ২০১৬ সালে। তাকে পাঁচ বছর নির্বাসিত করেছিল বিসিসিআই। ২০১৩ সালে আইপিএলে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের স'ঙ্গে নাম জড়িয়ে গিয়েছিল রউফের। অ'ভিযোগ ছিল, জুয়াড়িদের থেকে দামি দামি উপহার এবং টাকা নিয়ে একটি নির্দিষ্ট দলের পক্ষে সি'দ্ধান্ত নিয়েছিলেন তিনি। ২০১৩ সালে পর থেকেই ক্রিকে'টের মূল স্রোত থেকে দূরে সরতে থাকেন রউফ। তাকে আন্তর্জাতিক ক্রিকে'টেও আর ম্যাচ পরিচালনা করতে দেখা যায়নি।

অতীত ক্যারিয়ার নিয়ে রউফ বলেছেন, ‘জীবনের সেরা সময় আইপিএলে কাটিয়েছি। ওই অ'ভিযোগ নিয়ে এখন আর কিছু বলার নেই। বিসিসিআই নিজেরাই অ'ভিযোগ করেছিল, নিজেরাই সি'দ্ধান্ত নিয়েছে। আমি খুব খোলামেলাভাবে ক্রিকেটারদের স'ঙ্গে মিশতাম। ক্রিকেটার তো বটেই, তাদের স্ত্রীরাও বলত যে আমা'র স'ঙ্গ ক্রিকেটাররা উপভোগ করে।’

লাহোরের লান্ডা বাজারে যে দোকান রউফ চালান, সেখানে পুরনো জামাকাপড়, জুতা কম দামে পাওয়া যায়। হঠাৎ করে এ রকম একটা দোকান তিনি খুলতে গেলেন কেন? রউফ বলেছেন, ‘আমা'র কর্মচারীদের জন্য এই কাজ করি। ওদের সংসার যাতে চলে, সেটার চেষ্টা করি। কোনো লোভ নেই। অনেক টাকা দেখেছি জীবনে। আমা'র এক সন্তান বিশেষভাবে সক্ষম। আর একজন সদ্য আমেরিকা থেকে পড়াশোনা করে ফিরেছে। ওদের নিয়েই সময় কে'টে যায়।’

খবরটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
কপিরাইট © ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | স্পোর্টস গসিপ.কম
Theme Customized By Sports Gossip
error: Content is protected !!