1. bappy.ador@yahoo.com : admin :
  2. hostctg@gmail.com : Sports Editor : Sports Editor
  3. Onlynayeemkhanbd@gmail.com : Admin admin : Admin admin
  4. editor@sports-gossip.com : Edotpr Edotpr : Edotpr Edotpr
শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ০২:০৯ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
বিমানবন্দর থেকে এই জিনিসগুলো বিনামূল্যে বাড়ি নি’য়ে আসা যা’য় জনতার চাপ সইতে না পেরে শুটিং ফেলেই ঢাকার পথে অপু বিশ্বাস ইনজুরিতে তাসকিন-শরিফুল! টেস্টে কি ফিরবেন মোস্তাফিজুর রহমান? নিজের ফর্ম নিয়ে মুখ খুললেন স্বয়ং বিরাট কোহলি, জানালেন তিনি তাঁর ফর্ম নিয়ে একদমই চিন্তিত নন, সাথে জালানেন যে তিনি এই সময়টা নাকি উপভোগ করছেন কোহলির ব্যাটে রান, আশা টিকিয়ে রাখলো ব্যাঙ্গালুরু দুঃসংবাদ : ইনজুরির কারণে ঢাকা টেস্ট থেকে ছিটকে গেলেন চট্টগ্রাম টেস্টের সেরা বোলার নাঈম হাসান লাফিয়ে লাফিয়ে কমছে সোনার দাম, সোনা কিনতে হলে কিনুন এ সপ্তাহে নাম মাত্র শর্তে ২০ লাখ টাকার সহজ লোন পাবেন যেভাবে চট্টগ্রাম টেস্ট ড্রয়ের পর যা বললেন শ্রীলংকার অধিনায়ক বেড়েই চলেছে বিমান ভাড়া

আইপিএল ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ হারের রেকর্ড মুম্বাইয়ের

  • সময় মঙ্গলবার, ১০ মে, ২০২২
  • ১২ পঠিত

পাঁচবারের আইপিএল চ্যাম্পিয়ন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। খারাপ সময় এর আগেও এসেছে। কিন্তু এতটা খারাপ কখনো আসেনি, এবারের আইপিএলে যতটা খারাপ হয়েছে। আইপিএলে গত ১৫ বছরের ইতিহাসে সবচেয়ে বাজে অবস্থায় নিপতিত হয়েছে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স।

সবচেয়ে বড় কথা, এবারই সবচেয়ে বেশি ম্যাচ হারের রেকর্ড গড়েছে তারা। এ নিয়ে এবারের আইপিএলে মোট ১১টি ম্যাচ খেলে ফেলেছে মুম্বাই। গ্রুপ পর্বে আর বাকি আছে তিনটি ম্যাচ। এরই মধ্যে বিদায় নিশ্চিত হয়ে গেছে তাদের। যে ১১ ম্যাচ খেলেছে, তার মধ্যে মাত্র দুটিতে জয় পেয়েছে তারা।

সর্বশেষ সোমবার রাতে কলকাতা নাইট রাইডার্সের কাছে ৫২ রানের বিশাল ব্যবধানে পরাজিত হয়েছে তারা। সে স'ঙ্গে ২০০৯ ও ২০১৮ সালে গড়া নিজেদের ল'জ্জাজনক ইতিহাসও ভেঙে দেয় তারা। ওই দু’বছরে সবচেয়ে বেশি, ৮টি করে ম্যাচ হেরেছিল মুম্বাই। এবার কলকাতার কাছে হারটি টুর্নামেন্টে রোহিত শর্মা'দের নবম পরাজয়।

সুতরাং, মুম্বাই পেছনে ফেলে দিয়েছে পুরনো ব্যর্থতার সব নজির। লিগে এখনও যে ৩টি ম্যাচ বাকি রয়েছে মুম্বাইর, তাতে তাদের হারের পরিমাণও আরও বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আইপিএলে গত ১৫ মৌসুমে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের পারফর্ম্যান্স

২০০৮: ১৪ ম্যাচে ৭টি জয় ও ৭টি হার (১৪ পয়েন্ট)। ২০০৯: ১৪ ম্যাচে ৫টি জয়, ৮টি হার ও ১টি ম্যাচ পরিত্য'ক্ত (১১ পয়েন্ট)। ২০১০: ১৪ ম্যাচে ১০টি জয় ও ৪টি হার (২০ পয়েন্ট)। ২০১১: ১৪ ম্যাচে ৯টি জয় ও ৫টি হার (১৮ পয়েন্ট)। ২০১২: ১৬ ম্যাচে ১০টি জয় ও ৬টি হার (২০ পয়েন্ট)।

২০১৩: ১৬ ম্যাচে ১১টি জয় ও ৫টি হার (২২ পয়েন্ট, চ্যাম্পিয়ন)। ২০১৪: ১৪ ম্যাচে ৭টি জয় ও ৭টি হার (১৪ পয়েন্ট)। ২০১৫: ১৪ ম্যাচে ৮টি জয় ও ৬টি হার (১৬ পয়েন্ট, চ্যাম্পিয়ন)। ২০১৬: ১৪ ম্যাচে ৭টি জয় ও ৭টি হার (১৪ পয়েন্ট)। ২০১৭: ১৪ ম্যাচে ১০টি জয় ও ৪টি হার (২০ পয়েন্ট, চ্যাম্পিয়ন)।

২০১৮: ১৪ ম্যাচে ৬টি জয় ও ৮টি হার (১২ পয়েন্ট)। ২০১৯: ১৪ ম্যাচে ৯টি জয় ও ৫টি হার (১৮ পয়েন্ট, চ্যাম্পিয়ন)। ২০২০: ১৪ ম্যাচে ৯টি জয় ও ৫টি হার (১৮ পয়েন্ট, চ্যাম্পিয়ন)। ২০২১: ১৪ ম্যাচে ৭টি জয় ও ৭টি হার (১৪ পয়েন্ট)। ২০২২: ১১ ম্যাচে ২টি জয় ও ৯টি হার (৪ পয়েন্ট, এখনও ৩ ম্যাচ বাকি)।

খবরটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
কপিরাইট © ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | স্পোর্টস গসিপ.কম
Theme Customized By Sports Gossip
error: Content is protected !!