1. bappy.ador@yahoo.com : admin :
  2. hostctg@gmail.com : Sports Editor : Sports Editor
  3. Onlynayeemkhanbd@gmail.com : Admin admin : Admin admin
  4. editor@sports-gossip.com : Edotpr Edotpr : Edotpr Edotpr
শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ০৫:২০ পূর্বাহ্ন

অবশেষে গেরো খুলতে পেরে উচ্ছ্বাস মেসির

  • সময় রবিবার, ২১ নভেম্বর, ২০২১
  • ২০ পঠিত

গোলের পর মেসিকে উঁচিয়ে ধরলেন পিএসজির আর্জেন্টাইন মিডফিল্ডার লিয়ান্দ্রো পারেদেস ছবি: রয়টার্স

কদিন আগে আর্জেন্টিনার কাতার বিশ্বকাপে খেলা নিশ্চিত করার আনন্দ নিয়ে ফিরেছেন পিএসজিতে। ফেরার সময়েই ইনস্টাগ্রাম পোস্টে লিওনেল মেসি বলেছিলেন, এত দিন চোট আর অন্যান্য বাধার কারণে সেভাবে না পারলেও এবার পিএসজির হয়ে ঝাঁপিয়ে পড়বেন।

এরপর প্রথম ম্যাচে কাল নেমেছেন নঁতের বিপক্ষে। নিজেদের মাঠে লিগের ম্যাচটিতে পিএসজির ৩-১ গোলে জয়ের পথে প্রতিশ্রুতি পূরণের আভাসও দিয়ে রেখেছেন মেসি।

গোলকিপার কেইলর নাভাস লাল কার্ড দেখায় নিজেদের মাঠে শেষ ২৫ মিনিট ১০ জনের হয়ে পড়া পিএসজি শেষ পর্যন্ত সহজ জয় পেয়েছে। জয়ের পথে মেসির জন্য বাড়তি আনন্দ, পিএসজির হয়ে লিগে গোলখরা ঘুচিয়েছেন ৩৪ বছর বয়সী আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড। ম্যাচের পর মেসির কথায় স্পষ্ট বোঝা গেল, ষষ্ঠ ম্যাচে এসে পিএসজির জার্সিতে লিগে নিজের প্রথম গোল পাওয়ার উচ্ছ্বাস।

গত আগস্টে বার্সেলোনা ছেড়ে পিএসজিতে যাওয়ার পর ফরাসি ক্লাবটির জার্সিতে গোল এর আগেও পেয়েছেন মেসি। গতকালের আগেই তিন গোল করেছেন পিএসজির জার্সিতে, তবে তিনটি গোলই ছিল চ্যাম্পিয়নস লিগে। ইউরোপের শ্রেষ্ঠত্বসূচক টুর্নামেন্টে ২ ম্যাচে ২৭০ মিনিটেই তাঁর গোল তিনটি এসে গেছে। কিন্তু লিগে কেন যেন গোলের খাতাই খুলতে পারছিলেন না!

এর আগে পাঁচ ম্যাচে ৩২১ মিনিট খেলে গোল করা তো পরের কথা, গোল করাতেও পারেননি। অবশেষে খরা ঘুচল কাল নঁতের বিপক্ষে, ঘুচল চেনা ঢঙেই।

৮৭ মিনিটে পাল্টা আ'ক্রমণে কিলিয়ান এমবাপ্পের কাছ থেকে পাস পেলেন মেসি। তাঁর সামনে নঁতের এক ডিফেন্ডার ছিল, পায়ের নাচনে তাঁকে পাশ কাটিয়ে বক্সের বাইরে থেকে মেসির বাঁকানো শট জড়িয়ে যায় জালে। উদ্‌যাপনে মেসির উচ্ছ্বাসই বলে দিচ্ছিল, গোলটা কতটা স্বস্তি দিয়েছে তাঁকে। পার্ক দে প্রিন্সেসের গ্যালারিতে পিএসজির স মর'্থকদের বাঁধভাঙা উদ্‌যাপন আর ‘মেসি’, ‘মেসি’ রব বলছিল, তাঁরাও লিগে মেসির একটা গোলের অ'পেক্ষায় ছিলেন।

মেসি নিজেও কি ছিলেন না? ম্যাচ শেষে তাঁর উচ্ছ্বাস তা-ই বলে গেল। আমাজন প্রাইমে ম্যাচ শেষের সাক্ষাৎকারে মেসির কথা, ‘আমি খুশি। আ মর'া গোলের অনেক সুযোগ পেয়েছি, কিন্তু ওদের গোলকিপার দারুণ দক্ষতায় কয়েকটি গোল বাঁচিয়েছে। কিন্তু আ মর'া জয় না পাওয়ার ভয় করিনি, শেষ পর্যন্ত জিতেছি।’

পিএসজি যে জিতেছে, জয় না পাওয়ার ভয় যে শেষ পর্যন্ত জেঁকে বসেনি, তার পেছনে মেসির অবদান অনেক। ২ মিনিটে এমবাপ্পের গোলে এগিয়ে যাওয়া পিএসজি প্রথমা'র্ধে দারুণ খেলেছে, অনেক সুযোগও পেয়েছে, কিন্তু কাজে লাগাতে পারেনি। নঁতের গোলকিপারও দারুণ কিছু সেভ করেছেন।

এরপর দ্বিতীয়ার্ধে পিএসজির জন্য বড় ধাক্কা হয়ে আসে, ৬৫ মিনিটে নাভাসের লাল কার্ড। বদলি গোলকিপার সের্হিও রিকোকে নামানোর জন্য তখন নেইমা'রকে তুলে নেন পিএসজি কোচ মর'িসিও পচেত্তিনো। ব্রাজিলের হয়ে খেলতে গিয়ে চোট পাওয়া নেইমা'রকে নিয়ে হয়তো ঝুঁকি নিতে চাননি পচেত্তিনো।

কিন্তু ১০ জনের হয়ে পড়া পিএসজি নেইমা'রও উঠে যাওয়ার পর আরও বড় ধাক্কা খায় ৭৬ মিনিটে। রান্দাল কোলো মুয়ানির গোলে সমতা ফেরায় নঁতে। ম্যাচের বাকি ১৫ মিনিটে গোল পাবে কি না পিএসজি, এই শঙ্কা যখন পার্ক দে প্রিন্সেসে, তখন প্রথমে ভাগ্য আর পরে মেসির ছোঁয়ায় জয় আসে।

৮১ মিনিটে মেসির পাস আট'কাতে গিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন নঁতে ডিফেন্ডার দেনিস আপিয়াহ, কিন্তু লেফট উইংয়ের উদ্দেশে বাড়ানো সেই পাস আপিয়ার পায়ে লেগে অবিশ্বা'স্যভাবে ঢুকে গেল জালে। নঁতে গোলকিপারের কিছু করারই ছিল না। এরপর ৮৭ মিনিটে মেসির ঝলকে হাঁপ ছাড়ে পার্ক দে প্রিন্সেস।

হাঁপ ছেড়ে বেঁচেছেন মেসিও। লিগে আগের ৫ ম্যাচে খেললেও চোটের কারণে পুরো ম্যাচ খেলতে পারেননি এর তিনটিতেই। একটিতে বদলি হিসেবে নামেন, দুটিতে বদলি হয়ে মাঠ ছাড়েন আগেভাগে। নতুন ক্লাবে, নতুন কোচের কৌশলে, নতুন সতীর্থদের স'ঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার বি'ষয়ও ছিল। কিন্তু সব ছাপিয়ে দিন শেষে লিগে মেসির গোলখরাই ছিল শিরো'নামে।

সেটি অবশেষে ঘোচাতে পারার আনন্দ মেসির, ‘প্রথম গোলটা করতে পেরে ভালো লাগছে। তা-ও পার্ক দে প্রিন্সেসে, আমা'দের স মর'্থকদের সামনে। অবশ্য চ্যাম্পিয়নস লিগে গোল পেয়েছি আমি, তবে লিগে গোল করতে উন্মুখ ছিলাম।’

পিএসজি কোচ পচেত্তিনোও খুশি দলের মহাতারকার গোলখরা কে'টে যাওয়ায়, ‘হ্যাঁ, এটা (মেসির গোল পাওয়া) গু'রুত্বপূর্ণ ছিল। তবে ম্যাচে আমা'দের আরও গোল পাওয়া উচিত ছিল। (নাভাসের লাল কার্ডের পর) খেলোয়াড়েরা নিজেদের দৃঢ়তা দেখিয়েছে।’ পিএসজির খেলায় উন্নতির বি'ষয়ে আর্জেন্টাইন কোচের কথা, ‘খেলোয়াড়দের মধ্যে সমন্বয়ের ক্ষেত্রে, মাঠে একে অন্যের পাশে খেলার ক্ষেত্রে আরও সহজ বোধ করার জন্য সময় দিতে হয়।’

খবরটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
কপিরাইট © ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | স্পোর্টস গসিপ.কম
Theme Customized By Sports Gossip
error: Content is protected !!