1. bappy.ador@yahoo.com : admin :
  2. hostctg@gmail.com : Sports Editor : Sports Editor
  3. Onlynayeemkhanbd@gmail.com : Admin admin : Admin admin
  4. editor@sports-gossip.com : Edotpr Edotpr : Edotpr Edotpr
শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ০৫:২৫ পূর্বাহ্ন

বার্সায় এসে প্রথম দিনেই জাভির ‘নয় নিয়ম’

  • সময় বুধবার, ১০ নভেম্বর, ২০২১
  • ২৮ পঠিত

বার্সায় এসে প্রথম দিনেই জাভির ‘নয় নিয়ম’

সময়টা মোটেও ভালো যাচ্ছে না স্প্যানিশ ক্লাব এফসি বার্সেলোনার। স্প্যানিশ লা লিগা কিংবা উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগ কোনোটিতেই সুবিধা করতে পারছেন না তারা।

এরই মধ্যে রো'নাল্ড কোম্যানের পরিবর্তে দলের দায়িত্বে এসেছেন সাবেক তারকা জাভি হার্নান্দেজ।

সোমবার বার্সেলোনার কোচ হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হয় জাভিকে।

প্রায় ১০ হাজার বার্সা ভক্তের উপস্থিতিতে জাভিকে আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্ব বুঝিয়ে দিয়েছেন ক্লাবটির চেয়ারম্যান হুয়ান লাপোর্তা। দায়িত্ব নেওয়ার পর প্রথম দিন থেকে কাজে নেমে পড়েছেন জাভি।

ক্লাবের দায়িত্ব নেওয়ার প্রথম'দিনেই দুই ফিজিওকে বরখাস্ত করেছেন তিনি। পাশাপাশি নয়টি নিয়ম বেঁধে দিয়েছেন ব্লগ্রানা ড্রেসিংরুমের খেলোয়াড় এবং দলের স্টাফদের জন্য।

অনুশীলনের কমপক্ষে দেড় ঘন্টা আগে খেলোয়াড়দের উপস্থিত 'হতে হবে। দেড় ঘন্টা আগে আসার লক্ষ্য হলো অনুশীলন শুরুর আগে নিজেদের মধ্যে কিছু আলোচনা করা।

ক্লাব সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের অনুশীলনের কমপক্ষে দুই ঘন্টা আগে আসতে হবে। দলসংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের ম আগে আসার কারণ হচ্ছে খেলোয়াড়দের অনুশীলন শুরু করার আগে সবকিছু ঠিকঠাক করে রাখা। যাতে খেলোয়াড়রা এসেই অনুশীলনের জন্য প্রস্তুত 'হতে পারে।

খেলোয়াড়দের সিউটাত এস্পোর্টিভাতে খেতে হবে। সিউটাত এস্পোর্টিভা হচ্ছে বার্সেলোনার প্র'শিক্ষণ মাঠ এবং একাডেমিভিত্তিক খাবার জায়গা। এখানে প্রথম দলের খেলোয়াড়দের ক্লাবের পুষ্টিবিদদের দ্বারা নির্ধারিত তালিকা অনুসারে খাওয়ানো হয়।

খেলোয়াড়দের জন্য চালু হচ্ছে জরিমানা। জাভি চান বার্সায় গার্দিওয়ালার মতোই একটি নিয়ম বানাতে। যা শিগগিরই ফল দেবে। কারণ ফুটবলাররা যথেষ্ট পেশাদার হয়ে থাকেন। তাদের কী করতে হবে এবং কী করতে হবে না তা তাদের জানতে হবে।

ম্যাচের ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে দেরি বাড়ি ফেরা যাব'ে না। যখন দল কোনও খেলা থেকে দুই দিন বা ৪৮ ঘণ্টা দূরে থাকবে, তখন মধ্যরাতের পরে বাড়ি ফেরা নি'ষি'দ্ধ।

খেলোয়াড়কে অবশ্যই সচেতন থাকতে হবে যে তাকে সর্বোত্তম সম্ভাব্য অবস্থায় খেলায় পৌঁছাতে হবে।

অতিরিক্ত ক্রীড়া কার্যক্রম নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। খেলার বাইরেও ফুটবলারদের অন্যান্য কার্যক্রমে থাকতে পারে। যা নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। অনেক বেশি ভ্রমণ করার ফলে যদি এগু'লো তাদের পারফরম্যান্সে অবনতি করে তাহলে তাদের কোচিং স্টাফদের দ্বারা তদারকিতে রাখা হবে।

খেলোয়াড়দের শারীরিক ঝুঁকিতে ফেলতে পারে এইরকম কার্যক্রম একেবারে নি'ষি'দ্ধ থাকবে। কোনো খেলোয়াড় সার্ফিং বা বৈদ্যুতিক বাইক চালাতে পারবেন না। এই ধরনের অনুশীলন একটি অত্যন্ত গু'রুতর অ'পরাধ হিসাবে গণ্য করা হবে এবং আইনি বিভাগে তোলা হবে। কারণ এটি চুক্তির একটি স্পষ্ট ল'ঙ্ঘন হিসাবে বিবেচিত হয়।

খেলোয়াড়রা ক্লাবের একটি মৌলিক অংশ এবং তাদেরই প্রথম উদাহরণ স্থাপন করতে হবে। ভক্তদের প্রতি সহানুভূ'তি দেখাতে হবে এবং অহংকারী ভাব প্রকাশ করা নি'ষি'দ্ধ। ভ্রমণের সময় অবশ্যই আচরণের নিয়ম মেনে চলতে হবে এবং বার্সেলোনাকে সর্বদা উৎসাহিত করতে হবে।

খবরটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
কপিরাইট © ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | স্পোর্টস গসিপ.কম
Theme Customized By Sports Gossip
error: Content is protected !!