1. bappy.ador@yahoo.com : admin :
  2. hostctg@gmail.com : Sports Editor : Sports Editor
  3. Onlynayeemkhanbd@gmail.com : Admin admin : Admin admin
  4. editor@sports-gossip.com : Edotpr Edotpr : Edotpr Edotpr
শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ০৫:২৩ পূর্বাহ্ন

০ রানে প্রথম ৪ উইকেট হারিয়ে ঢাকা বিভাগের অনাকাঙ্ক্ষিত রেকর্ড

  • সময় রবিবার, ৭ নভেম্বর, ২০২১
  • ২৬ পঠিত

প্রথম ওভারে ৩ উইকেট নিয়েছেন সিলেটের নাসুম আহমেদ, ইনিংসে নিয়েছেন ৭ উইকেট। আজ সিলেটে ঢাকা বিভাগের বিপক্ষে জাতীয় ক্রিকেট লিগেছবি: ওয়ালটন

১৯৫২ সালে হেডিংলি টেস্টে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় ইনিংসে স্কোরবোর্ডে কোনো রান যোগ করার আগেই প্রথম ৪ উইকেট হারিয়েছিল ভারত। ১৪৪ বছরের টেস্ট ইতিহাসে কোনো দল ০ রানে প্রথম ৪ উইকেট ওই একবারই হারিয়েছে।

প্রথম শ্রেণির ক্রিকে'টেও এ ঘটনা প্রতিদিন ঘটে না। প্রায় ২০০ বছরের ইতিহাসে মাত্র ১২ বার কোনো দল ০ রানে হারিয়েছে প্রথম ৪ উইকেট। ১২তম ঘটনাটি আজই দেখেছে ক্রিকেট। দুর্লভ সেই ঘটনার সাক্ষী হলো সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম। সিলেটের বিপক্ষে সাতসকালে ব্যাটিংয়ে নেমে কোনো রান করার আগেই ৪ উইকেট হারিয়ে বসে ঢাকা বিভাগ। বাংলাদেশের মাটিতে প্রথম শ্রেণির ক্রিকে'টে এই প্রথম কোনো দল ০ রানে হারাল প্রথম ৪ উইকেট।

প্রথম শ্রেণির ক্রিকে'টে রানের খাতা খোলার আগেই সবচেয়ে বেশি উইকেট হারানোর রেকর্ড মেরিলিবোন ক্রিকেট ক্লাব বা এমসিসির। ১৮৭২ সালে ক্রিকেট-তীর্থ লর্ডসে কাউন্টি দল সারের বিপক্ষে ০ রানে প্রথম ৭ উইকেট হারিয়েছিল দলটি।

আজকের আগে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট সর্বশেষ এ ঘটনা দেখে ২০১৫-১৬ মৌসুমে। পাকিস্তানের কায়েদ-ই-আজম ট্রফিতে রাওয়ালপিন্ডির বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে ০ রানে প্রথম ৪ উইকেট হারায় ফেডারেলি অ্যাডমিনিস্টারড ট্রাইবাল অ্যারিয়াস। মজার ব্যাপার হচ্ছে প্রথম ইনিংসে ৮৯ রানে অলআউট দলটি শেষ পর্যন্ত জিতেছিল সেই ম্যাচ।

প্রথম শ্রেণির ক্রিকে'টে রানের খাতা খোলার আগেই সবচেয়ে বেশি উইকেট হারানোর রেকর্ড মেরিলিবোন ক্রিকেট ক্লাব বা এমসিসির। ১৮৭২ সালে ক্রিকেট-তীর্থ লর্ডসে কাউন্টি দল সারের বিপক্ষে ০ রানে প্রথম ৭ উইকেট হারিয়েছিল দলটি। ক্রিকেট ইতিহাসের সবচেয়ে আলোচিত চরিত্র ডব্লু জি গ্রে'সের আউটেই সূচনা হয়েছিল ধসের। এমসিসি প্রথম ইনিংসে অলআউট হয়েছিল ১৬ রানে।

সিলেটে আজ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপফেরত বাঁহাতি স্পিনার নাসুম আহমেদই ধস নামিয়েছেন ঢাকার ইনিংসে। বাংলাদেশ টেস্ট দলের পেসার ইবাদত হোসেনের করা প্রথম ওভারে কোনো রান নিতে পারেনি ঢাকা। পরের ওভারে বল করতে এসেই প্রথম বলে রনি তালুকদারকে অলক কাপালির ক্যাচ বানান নাসুম। ওভারের তৃতীয় বলে বোল্ড জয়রাজ শেখ, শেষ বলে এলবিডব্লু রকিবুল হাসান।

পরের ওভারের প্রথম বলে ঢাকার উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান আবদুল মজিদকে এলবিডব্লু করে ঢাকার স্কোরটাকে ৪ উইকে'টে ০ বানিয়ে দেন ইবাদত। ঢাকার অধিনায়ক তাইবুর রহমান এরপর মাহিদুল ইসলামকে নিয়ে ৮৯ রানের জুটি গড়ে ওই ধাক্কা সামলান। তবে ২০ রান করে তাইবুর নাসুমের চতুর্থ শিকার 'হতেই আবার ধসের শুরু ঢাকার। ৩৪ রানে শেষ ৬ উইকেট হারিয়ে দলটি অলআউট ১২৩ রানে। ৬৪ রান করে মাহিদুল ফেরেন দলকে ১০৩ রানে রেখে অষ্টম উইকেট হিসেবে।

নাসুম ১৮ ওভারে ৪৩ রান দিয়ে নিয়েছেন ৭ উইকেট। ২১ ম্যাচের প্রথম শ্রেণির ক্যারিয়ারে বাঁহাতি স্পিনারের এটিই সেরা বোলিং। প্রথম শ্রেণির ক্যারিয়ারে নাসুম এ নিয়ে দ্বিতীয়বার ইনিংসে ৭ উইকেট পেলেন। ২০১৪ সালে প্রথমবার ৯৭ রানে ৭ উইকেট নিয়েছিলেন সিলেটের হয়েই রংপুরের বিপক্ষে। নাসুমের সিলেট আজ প্রথম দিনটা শেষ করেছে ২ উইকেট ৭৯ রান তুলে।

জাতীয় ক্রিকে'টে লিগের চতুর্থ রাউন্ডের প্রথম দিনে ৭ উইকেট নিয়েছেন শ’হীদুল ইসলামও। ঢাকা মহানগরের পেসার বিকেএসপির চার নম্বর মাঠে রাজশাহীর বিপক্ষে ৪৮ রানে নেন ৭ উইকেট। ৩৫ ম্যাচের প্রথম শ্রেণির ক্যারিয়ারে শ’হীদুল এবারই প্রথম ইনিংসে ৭ উইকেট পেলেন। তাঁর দল রাজশাহীকে অলআউট ২৩২ রানে। মহানগর দিন শেষ করেছে ২ উইকে'টে ৫৩ রান তুলে।

খবরটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
কপিরাইট © ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | স্পোর্টস গসিপ.কম
Theme Customized By Sports Gossip
error: Content is protected !!