1. bappy.ador@yahoo.com : admin :
  2. hostctg@gmail.com : Sports Editor : Sports Editor
  3. Onlynayeemkhanbd@gmail.com : Admin admin : Admin admin
  4. editor@sports-gossip.com : Edotpr Edotpr : Edotpr Edotpr
রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১০:৫৮ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
রোনালদোদের জালে লেস্টারের গোল উৎসব সাইফউদ্দিনের দুর্দান্ত ইয়র্কারে শূন্য রানেই ফিরলো স্কটিশ অধিনায়ক লাসিথ মালিঙ্গার সিংহাসন কেড়ে নিলেন সাকিব মালিঙ্গাকে টপকে টি-টোয়েন্টিতে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি এখন সাকিব টি-টুয়েন্টির ইতিহাসে সর্বোচ্চ উইকেট সাকিবের মডেল বানানোর কথা বলে ৫ লাখ টাকা আদায়, আসল ঘটনা জানালেন তৌসিফ খুশির খবর : স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে আজ আর মাত্র ২ উইকেট নিতে পারলে একসাথে তিনটি বিশ্ব রেকর্ড গড়বেন সাকিব আল হাসান। শোয়েব মালিককে বিশ্বকাপ দলে পেয়ে খুব খুশি বাবর আজম বন্ধুর বউকে ভাগিয়ে নেওয়ার ৭ বছর পর সেই আর্জেন্টাইন ফুটবলারের সংসার ভাঙছে ল্যাতিন আমেরিকার সেরা একাদশে ব্রাজিলের পাঁচজন, নেই মেসি

যেকারনে সালাহর গোল ৫০-৬০ বছর পরেও মনে রাখবে সবাই

  • সময় সোমবার, ৪ অক্টোবর, ২০২১
  • ১৫ পঠিত

যেকারনে সালাহর গোল ৫০-৬০ বছর পরেও মনে রাখবে সবাই

মাঝমাঠে কার্টিস জোন্সের কাছ থেকে বল নিলেন। পেছন থেকে তাঁকে মা'র্ক করতে এগিয়ে এলেন লেফটব্যাক জোয়াও ক্যানসেলো আর উই'ঙ্গার ফিল ফোডেন। কিন্তু কীসের কী!

১৮০ ডিগ্রি ঘুরে চকিতেই ছিটকে ফেললেন দুজনকে,
তাঁর পা থেকে বল কেড়ে নেওয়ার চেষ্টায় ভূপাতিত হলেন আরেক মিডফিল্ডার বের্নার্দো সিলভা।

ফোডেন আর বের্নার্দো বুঝে গিয়েছিলেন, তাঁর পিছু ধাওয়া করে লাভ নেই, যা হওয়ার তা হবেই। বোঝেননি ক্যানসেলো। প্রথমবার হেরে যাওয়ার পরেও পিছু পিছু দৌড়ালেন শেষ পর্যন্ত।

ওদিকে তাঁর পায়ে তখন একের পর এক বিদ্যুৎ-চমক। যে চমকে ছিটকে গেলেন ডিফেন্ডার এমেরিক লাপোর্ত আর ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার রদ্রি।

লাপোর্তের রক্ষণ স'ঙ্গী রুবেন দিয়াস তখন রবার্তো ফিরমিনোকে মা'র্ক করছিলেন। কিন্তু তিনি যেভাবে বল নিয়ে ছুটে আসছিলেন, দিয়াস বুঝলেন, ফিরমিনোকে আগলে রেখে লাভ নেই।

ঠেকাতে হবে বল নিয়ে আগু'য়ান সেই খেলোয়াড়কে। মর'িয়া হয়ে স্লাইডিং ট্যাকল করতে গেলেন, একই কাজ করলেন লাপোর্তেও। লাভ হলো না। ডান পায়ের জোরালো শটে বল ততক্ষণে আশ্রয় নিয়েছে জালে।

গোলকিপার এদেরসন ডান দিকে চেয়ে চেয়ে দেখলেন বল ঢুকে গেল গোলে। পেছনে আসতে থাকা আরেক ডিফেন্ডার কাইল ওয়াকারেরও একই হাল।

এভাবেই একে একে অন্তত সাত থেকে আট'জনের চোখের সামনে দিয়ে ড্রিবল আর গতির পসরা সাজিয়ে গোল করলেন লিভারপুলের ‘মিসরীয় রাজা’ মো হা'ম্ম'দ সালাহ।

তাঁর গোলেই ম্যাচের ওই পর্যায়ে এগিয়ে গিয়েছিল লিভারপুল। কিন্তু শেষমেশ সালাহর দুর্দান্ত সেই গোলটা জয় এনে দিতে পারেনি লিভারপুলকে। কিছুক্ষণ পরেই কেভিন ডি ব্রুইনা গোল করে সমতায় ফেরান ম্যানচেস্টার সিটিকে।

এক পয়েন্ট ভাগাভাগি করতে হয়েছে, তাও আবার শিরোপা লড়াইয়ে থাকা সবচেয়ে বড় প্রতিদ্বন্দ্বীদের বিপক্ষে। লিভারপুলের কোচ ইয়ুর্গেন ক্লপের মনের মধ্যে একটু খচখচানি হওয়াই স্বাভাবিক।

কিন্তু সালাহর গোলটা যেন সব কষ্ট ভুলিয়ে দিচ্ছে ক্লপের, ‘এই ক্লাব কখনই কোনো কিছু ভোলে না। মানুষ এই গোলটা নিয়ে বছরের পর বছর ধরে কথা বলবে। ৫০-৬০ বছর পরেও এই গোলটা মনে রাখবে সবাই।

সেরা খেলোয়াড়েরাই এমন গোল করে থাকে। প্রথমে যেভাবে বলের নিয়ন্ত্রণ নিল ও, এরপর একের পর এক চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে সামনে এগিয়ে গিয়ে ডান পায়ের শটে যেভাবে গোল করল, এক কথায় অনবদ্য।’

শেষ পর্যন্ত এ ড্রয়ের পর প্রিমিয়ার লিগে ৭টি করে ম্যাচ শেষে লিভারপুলের পয়েন্ট ১৫, সিটির ১৪। লিগে ইয়ুর্গেন ক্লপের দলের অবস্থান দুই নম্বরে, তিনে সিটি। সমান ৭ ম্যাচে ১৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে টমাস টুখেলের চেলসি।

খবরটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..
কপিরাইট © ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | স্পোর্টস গসিপ.কম
Theme Customized By Sports Gossip
error: Content is protected !!